দেশের বিভিন্ন জায়গায় শৈত্যপ্রবাহের তোড় এখনো চলছে। শীত নিবারণে আগুন পোহাতে গিয়ে দগ্ধ হয়ে রংপুর ও লালমনিরহাটে আরো পাঁচ জনের মৃত্যু হয়েছে। টানা দুই সপ্তাহের শৈত প্রবাহে দুর্বিসহ হয়ে উঠেছে কুড়িগ্রামের মানুষের জীবন যাত্রা। শীতের তীব্রতার সাথে রাতে বৃষ্টির মতো কুয়াশাও ঝরছে। ঘর থেকে বের হতে পারছে না মানুষ।

এদিকে, খড়কুটা জ্বালিয়ে আগুন পোহানোর সময় রংপুর ও লালমনিরহাটে দগ্ধ হয়ে মারা গেছে আরো পাঁচজন। গত ১১ দিনে রংপুরে দগ্ধ হয়ে মারা গেছেন ১৩ জন। সিরাজগঞ্জে টানা শৈত্য প্রবাহে নিউমোনিয়া, ডায়রিয়াসহ নানা রোগে আক্রান্ত হয়ে সদর হাসপাতালে প্রতিদিনই বাড়ছে রোগীর সংখ্যা।

এদিকে, ঘন কুয়াশায় ব্যহত হচ্ছে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ও শিমুলিয়া-কাঠাঁলবাড়ী নৌরুটে ফেরি চলাচল। আট ঘণ্টা বন্ধ থাকার পরে শিমুলিয়া ও সাত ঘন্টা বন্ধ থাকার পর দৌলতদিয়ার ফেরি চলাচল শুরু হয়।

Facebook Comments

You may also like

বীরগঞ্জে ইট ভাটা মালিকের তান্ডবে নারীসহ ৭ জন হাসপাতালে

আবাদি জমির মাটি কেটে ইট ভাটায় নিয়ে যাওয়ার