আবু সাঈদ সরকার | দিনাজপুর | আজ ৫ মার্চ সকাল ১১টায় দিনাজপুর প্রেস ক্লাব চত্বরে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের আহ্বানে সামাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী সহ প্রায় পাঁচ শতাধিক মানুষ শিল্পি নাহিদুল ইসলাম নাহিদের হত্যার বিচারের দাবীতে মানববন্ধনে অংশ নেন।

সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক সুলতান কামাল উদ্দিন বাচ্চু বলেন সদা হাস্যজ্জ্বল জাত শিল্পি নাহিদুল ইসলাম নাহিদের হত্যা আমাদের সাংস্কৃতিক অঙ্গনের জন্য এক হুমকি স্বরুপ,
তাঁর মত একজন সঙ্গীত পাগল সাদা মনের মানুষের হত্যার সুষ্ঠ বিচার যদি না হয় তাহলে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট দূর্বার আন্দোলন গড়ে তুলতে বাধ্য হবে।

গত ২৬ ফেব্রুয়ারি দিনাজপুরের একনিষ্ঠ সাংস্কৃতিক কর্মী ও জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী এবং দিনাজপুর কালেক্টরেট স্কুল এন্ড কলেজের সঙ্গীত শিক্ষক নাহিদুল ইসলাম নাহিদের রহস্যজনক মৃত্যু হয়।

বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে জানা যায় যে নাহিদুল ইসলাম নাহিদ ঐ দিন সন্ধ্যার পর ইকোসোর্স সফটওয়্যার কোম্পানি “কমিউনিটি লাইফ বাংলাদেশ” এর একটি অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার জন্য দিনাজপুর ইয়াম্মী চাইনিজ রেস্টুরেন্টে যান। অনুষ্ঠান চলাকালিন সময়ে তাঁর কাছে একটি ফোন কল আসে এবং তিনি রেস্টুরেন্ট থেকে বের হন। পরে এক সময় তাঁকে মুমূর্ষু অবস্থায় ইয়াম্মী চাইনিজ রেস্টুরেন্ট এর গলিতে পাওয়া যায় এবং সাথে সাথে এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। কিছু সময় পরে হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাক্তার তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

প্রাথমিক ভাবে হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাঃ সুশেন চন্দ্র রায় জানান হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে তাঁর মৃত্যু হয় কিন্তু ময়নাতদন্তের পর ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগীয় প্রধান ডাঃ মোঃ আমির উদ্দীন জানান লাশের বুকের দু’দিকে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে,ফুসফুসের নিন্মাংশ থেকে প্রচন্ড রক্তক্ষরণ হয়েছে এবং শরীরের বিভিন্ন যায়গায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

সদা হাস্যজ্জ্বল একজন মানুষ সঙ্গীত যাঁর প্রাণ সাংস্কৃতিক অঙ্গন যাঁর হদয়ের উঠান তাঁকে নৃশংস ভাবে হত্যা করায় দিনাজপুরের সাংস্কৃতিক অঙ্গনে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।
অনতিবিলম্বে হত্যাকারীদের মুখোশ উন্মোচন করে কঠোর শাত্তির আওতায় না আনলে ইয়াসমিন হত্যা আন্দোলনের মত ফুঁসে উঠবে দিনাজপুর।

Facebook Comments

You may also like

বীরগঞ্জে ইট ভাটা মালিকের তান্ডবে নারীসহ ৭ জন হাসপাতালে

আবাদি জমির মাটি কেটে ইট ভাটায় নিয়ে যাওয়ার