বীরগঞ্জ নিউজ২৪ ডেস্কঃ

রংপুর জেলার তারাগঞ্জ উপজেলায় সদ্য জন্ম নেওয়া এক নবজাতককে বিক্রি করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে বাবা এজান উদ্দিনের বিরুদ্ধে

গত শনিবার (২২ সেপ্টেম্বর) আলমপুর ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটলে স্থানীয়দের উদ্যোগে ঘটনার তিনদিন পর আবার মায়ের কোলে ফিরে এসেছে শিশুটি।

জানা গেছে, আলমপুর ইউনিয়নের ভীমপুর শাইলবাড়ী গ্রামের কৃষক এজান উদ্দিনের দ্বিতীয় স্ত্রী নাসরিন সেদিন সন্ধ্যায় বাড়িতেই একটি পুত্রসন্তানের জন্ম দিয়ে অচেতন হয়ে পড়েন। এসময় স্ত্রীর অগোচরে এজান তার শিশুসন্তানকে পার্শ্ববর্তী বদরগঞ্জ উপজেলার সাহাপুর এলাকার শামিমা বেগমের কাছে রাতেই বিক্রি করে দেন।

জ্ঞান ফিরে স্ত্রীকে সব জানান এজান। নাসরিন কান্নাকাটি শুরু করলে ঘটনাটি এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে।

অবশেষে স্থানীয়দের উদ্যোগে গত সোমবার বিকালে ক্রেতা শামিমাসহ নাসরিনের শিশুটিকে উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে আসে। পরে শিশুটিকে তার মা নাসরিনের কোলে তুলে দেয়া হয়।

ক্রেতা শামিমার দাবি, ৫-৬ মাস আগে নাসরিন ও তার স্বামী সংসারে অভাবের কারণে রংপুরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে শিশু সন্তানটিকে নষ্ট করার জন্য যায়। ওই দিন শামিমার সঙ্গে নাসরিন ও তার স্বামী এজানের পরিচয় হয়। শিশুটিকে নষ্ট না করে শামিমা তার নিঃসন্তান এক ভাতিজিকে দিতে বলেন। সে কথামতো কৃষক এজান শিশুটি ভূমিষ্ঠ হওয়ার পরপরই শামিমার কাছে বিক্রি করে দেন।

Facebook Comments

You may also like

এমপি প্রার্থী নিজেই করছেন মাইকিং সঙ্গী অটো চালক!

বিশেষ সংবাদদাতাঃ  আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কুড়িগ্রাম-১